Bengali Jokes

Top Husband Wife Jokes in Bengali – স্বামী- স্ত্রী কথপোকথনের মজার জোকস

Top Husband Wife Jokes in Bengali – স্বামী- স্ত্রী কথপোকথনের মজার জোকস

Husband Wife Jokes in Bengali : প্রিয় পাঠকেরা, মজাদার জোকস শুনতে কার না ভালো লাগে ! আর স্বামী স্ত্রীর কথোপকথনের জোকসের মজায় আলাদা। দাম্পত্য জীবনের মাধুর্যই লুকিয়ে আছে এই স্বামী-স্ত্রী এর খুনসুটির মাঝে । তবে অনেক ক্ষেত্রে এই খুনসুটি গুলো হয়ে ওঠে মজাদার জোকস। সেরকমই অনেক গুলো সুন্দর সুন্দর স্বামী -স্ত্রী জোকস নিয়ে আজ আমরা হাজির হয়েছি । কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন ।

Husband-Wife Jokes in Bangla

কতগুলি সুন্দর সুন্দর Husband-Wife Jokes in Bangla দেওয়া রইলো ।

সেরা ড্রাইভার

স্ত্রী : হ্যালো …আমার কথা শুনতে পাচ্ছ …শোনো, আমি কিন্তু ড্রাইভারকে চাকুরী থেকে তাড়িয়ে দেব।
স্বামী : কেন কি হয়েছে ?
স্ত্রী : এই নিয়ে আজ তিনবার হলো আমি ওর জন্য মরতে মরতে বেঁচে গেছি ।
স্বামী : ওকে আর একবার সুযোগ দাও না প্লিজ ।


শেষ ইচ্ছে

মৃত্যুশয্যায় শায়িত স্বামী তার স্ত্রীকে বলছেন-
স্বামী: আমি তো আর এক মাস পর মারা যাব, তাই আমি চাই, আমার মৃত্যুর পর তুমি মিস্টার চ্যাটার্জীকে বিয়ে কর।
স্ত্রী: মিস্টার চ্যাটার্জী! বলো কি, সে তো তোমার শত্রু। আর তাকে কিনা বিয়ে করতে বলছ তুমি!
স্বামী: আমি জানি সে আমার শত্রু। তাই চ্যাটার্জীকে শায়েস্তা করার এটাই তো মোক্ষম সুযোগ, বুঝলে।
😆😆😆😆😆😆😆


আরও দেখে নিন :

  • গরম নিয়ে ক্যাপশন । প্রচন্ড গরম নিয়ে মজার উক্তি
  • গোপাল ভাঁড়ের গল্প । Gopal Bhar Stories in Bengali

সৌভাগ্য

স্বামী তাঁর স্ত্রীকে ডিভোর্স দিতে আদালতে গেছেন।
স্বামী: আমি আমার স্ত্রীকে আজই ডিভোর্স দিতে চাই। আপনি একটু ব্যবস্থা করুন।
আইনজীবী: কেন, সমস্যা কী আপনাদের?
স্বামী: আমার স্ত্রী প্রায় ছয় মাস ধরে আমার সঙ্গে কথা বলে না।
আইনজীবী: আরেকবার ভেবে দেখুন। এমন স্ত্রী পাওয়া কিন্তু ভাগ্যের ব্যাপার।
😜😜😜😜😜😜😜


স্বামী-স্ত্রী মজাদার জোকস

কতগুলি স্বামী-স্ত্রী মজাদার জোকস দেওয়া রইলো ।

ঝগড়া

বল্টু: তুই তোর বউর সাথে ঝগড়া করিস?
পল্টু: হ্যাঁ, করি। তবে প্রতিবার ঝগড়ার শেষে ও এসে হাঁটু গেড়ে আমার সামনে বসে পড়ে।
বল্টু: বলিস কী! তারপর?
পল্টু: তারপর মাথা ঝুঁকিয়ে বলে, ‘খাটের তলা থেকে বেরিয়ে আসো। আর মারব না।’
🤫🤫🤫🤫🤫🤫


পরিষ্কার ঘর

অফিস থেকে ফেরার পরে ,
স্বামী : কি ব্যাপার, আজ ঘর এতো পরিষ্কার ! সারাদিন ফেসবুক দেখনি ?
স্ত্রী : সকাল থেকে ফোনের চার্জার খুঁজে পাচ্ছি না। খুঁজতে খুঁজতে ঘর পরিষ্কার হয়ে গেছে।
😜😜😜😜😜😜😜


সাধাসিধে বর

স্ত্রী : তুমি এতো সাধাসিধে যে, যে কেউ তোমাকে বোকা বানিয়ে চলে যায়।
স্বামী : শুরুতো তোমার বাবাই করেছিল।
🤭🤭🤭🤭🤭


পতি-পত্নী জোকস

কতগুলো মজাদার পতি-পত্নী জোকস দেওয়া রইলো ।

পঞ্জিকা

স্ত্রী : তুমি সবসময় বই নিয়ে বসে থাকো কেন ?
স্বামী : ভালো লাগে বলে।
স্ত্রী : ইস, আমি যদি বৌ না হয়ে বই হতাম কতো ভালো হতো !
স্বামী : তাই যদি হতে চাও তাহলে পঞ্জিকা হও, বছর বছর পরিবর্তন করতে পারবো।
😜😜😜😜😜😜😜


কিপ্টে শশুর

জামাই যতদিনই শশুরবাড়ি যায়, কিপ্টে শ্বশুর ততবারই ডিম্ নিয়ে আসে।
একদিন না থাকতে পেরে জামাই বলেই বসলো – “এদের বাবা মা কবে আসবে” ?
শ্বশুর : ওরা অনাথ।
😜😜😜😜😜😜😜


বৌ বাপের বাড়ি

সম্রাট গ্যাস ওভেনে প্রেসার কুকার চড়িয়ে একটা সেলফি তুলে ফেবুতে আপলোড করে লিখলো – “বৌ বাপের বাড়ি গেছে, চা বানাবো, কটা সিটি লাগাবো ? “

কমেন্ট এলো –

অনুপম : কুকারে অলরেডি একটা সিটি আছে, আর লাগাতে হবে না।
তন্ময় : অরে বুরবক, চা কুকারে হয় না, কড়াই চাপা !!
মাসুদ : প্রথমে দুই বা তিনঘন্টা চা জলে ভিজিয়ে রেখে ২-৩ টে সিটি দিয়ে নামিয়ে নাও।
প্রীতম : জানলায় গিয়ে সিটি দে, পাশের বাড়ির বৌদি এসে চা দিয়ে যাবে।
And the ultimate One
রাজা : ওরে মূর্খ, বৌ বাপের বাড়ি গেছে তো চা খাচ্ছিস কেন ? বোতল বার কর , আমরা আসছি। সিটি আমরাই বাজিয়ে দেব।
😜😜😜😜😜😜😜


ভিখারি স্বামী

স্ত্রী : তুমি যে একটা ভিখারি সেটা বিয়ের আগে বলতে পারলে না ?
স্বামী : আমি তো হাজার বার বলেছি , তুমি ছাড়া এই পৃথিবীতে আমার আর কিচ্ছু নেই। তখন তো হাসতে, বুঝতে পারোনি ?
😜😜😜😜


দাম্পত্য জোকস

কতগুলি সুন্দর সুন্দর দাম্পত্য জোকস দেওয়া রইলো ।

পুরুষের দুঃখ

সব পুরুষেরই কান্না বউ নিয়ে।
কেউ এনে কাঁদছে
তো কেউ
আনার জন্য কাঁদছে।


সামান্য ধাক্কা

স্বামী : শোনো, আমি যদি কোনোদিন এভারেস্টে উঠি, তাহলে তুমি আমাকে কি দেবে ?

স্ত্রী : সামান্য ধাক্কা।


বাড়ি ফিরবো কি ?

বৌকে ম্যাসাজ দিয়েছিলাম “আমি তোমাকে ভালোবাসি “।
বানান ভুল হয়ে চলে গেছে “আমি সোমাকে ভালোবাসি “।
এখন ভাবছি বাড়ি ফিরবো কিনা।


খেয়ে শুয়ে পরো

অফিস থেকে স্বামী ফোনে
স্বামী : রাতের জন্য কি রান্না হয়েছে ?
স্ত্রী : বিষ হয়েছে বিষ।
স্বামী : বাহ্ ! আমার ফিরতে দেরি হবে, তুমি খেয়ে শুয়ে পরো।


অসাধারণ রান্না

স্ত্রী : রান্না কেমন হয়েছে ?
স্বামী : অসাধারণ।
স্ত্রী : কিন্তু, ছেলে যে বললো ভালো হয়নি !
স্বামী : আসলে ওর বিয়ে হয়নি তো, তাই কোথায় কি বলতে হয় ও জানে যা।


কবিতা না ঝগড়া

স্বামী : আতা আছে তোতা পাখি, ডালিম গাছে মৌ , আগে জানলে আনতাম না এমন ঝগড়াটে বৌ।
স্ত্রী : নোটন নোটন পায়রাগুলো ঝোটন বেঁধেছে , আমাকে বিয়ে করতে তোমায় কে বলেছে ?


Out of Control

ছেলের স্কুলের Admission Form ফিল আপ করার সময় …..
ছেলে : বাবা Mother Tongue কি লিখবো ?
বাবা : লেখো Very Long and Out of Control


ঘুম আসছে না

স্বামী : জান, আমার ঘুম আসছে না।
স্ত্রী : তাহলে রান্নাঘরে গিয়ে বাসনগুলো মেজে এস , ঘুম এসে যাবে।
স্বামী : দূর পাগলী , আমি তো ঘুমের মধ্যে কথা বলছি।
😜😜😜😜


বৌ হারিয়ে গেলে

মার্কেটে কেনাকাটার সময় এক ভদ্রমহিলাকে বলছেন এক লোক, ‘এই যে শুনুন।’
ভদ্রমহিলা: বলুন
লোক: এখানে এসে আমি আমার স্ত্রীকে হারিয়ে ফেলেছি। আমি কি আপনার সঙ্গে কিছুক্ষণ কথা বলতে পারি?
ভদ্রমহিলা: স্ত্রীকে হারিয়ে ফেলেছেন তো আমার সঙ্গে কথা বলতে চাইছেন কেন?
লোক: না মানে…আমি লক্ষ্য করেছি, যখনই আমি কোনো অপরিচিত নারীর সঙ্গে কথা বলি, তখনই কোথা থেকে যেন আমার স্ত্রী এসে হাজির হয়!


এত আনন্দ সহ্য হয় ?

স্ত্রী: কখনো ভেবে দেখেছ, আমি একদিন মরে যাব।
স্বামী: না না! তুমি মরে গেলে আমিও যে মারা যাব !
স্ত্রী: কিন্তু কেন?
স্বামী: কারণ এত আনন্দ আমি সহ্য করতে পারব না!


Wrong Number

বল্টু তার বউকে কলকাতা থেকে ফোন করল। ফোনটা এক চাকর ধরল।
চাকর : হ্যালো।
বল্টু : মেম সাহেবকে ফোনটা দে।
চাকর : কিন্তু মেম সাহেব তো সাহেবের সাথে বেড রুমে ঘুমাচ্ছে।
বল্টু : মানে?? সাহেব তো আমি ।
চাকর : আমি এখন কি করব??
বল্টু : দুইজনকেই গুলি করে মেরে ফেল ৫ লাখটাকা দেব ।
চাকর দুইজনকে গুলি করে মারার পর,
চাকর : সাহেব, লাশ ২টা এখন কি করব??
বল্টু : লাশ দুটো বাড়ির পিছনের swimming pool এ ফেলে দে।
চাকর : কিন্তু সাহেব, বাড়ির পিছনেতো কোন swimming pool নেই.
বল্টু : নেই??? ওহ সরি তাহলে wrong number!!!


একা পারবে ?

স্বামী স্ত্রীকে জিজ্ঞেস করল, বিয়ের আগে তুমি কি কারও সঙ্গে প্রেম করেছ?
স্ত্রী বলল, হ্যাঁ।
স্বামী রেগে বলল, তাহলে ওই হতচ্ছাড়ার নাম বলো। এক্ষুনি গিয়ে দাঁত ভেঙে দিয়ে আসি।
স্ত্রী বলল, ওগো, তুমি একা কি তাদের সবার সঙ্গে পারবে?


এক মাস শেষ

কী রে অমন মন মরা হয়ে বসে আছিস কেন?
আর বলিস না, বউ বলেছে মদ খাওয়া না ছাড়লে এক মাস আমার সঙ্গে কথা বলবে না ।
বাঃ, এ তো বেশ ভাল কথা । এই এক মাস যত খুশি মদ খেতে পারবি।
আজই সে এক মাস শেষ হচ্ছে।


বোঝো ঠ্যালা

বৌকে খুশি করার জন্য জামাকাপড় গুলো সুন্দর করে ভাঁজ করে আলমারিতে রেখে এলাম ।

পরে জানতে পারলাম ওগুলো কাচার জন্য বাইরে রাখা ছিল ।
😜😜😜😜

Leave a Reply

Back to top button